তিন দশকের অপেক্ষার ইতি টেনে প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা জিতেছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। রেকর্ড ৭ ম্যাচ বাকি থাকতে শিরোপা নিশ্চিত করা দলটি শেষ পর্যন্ত আসর শেষ করেছে ১৮ পয়েন্টে এগিয়ে থেকে। গত মৌসুমে ক্লপের দল জিতেছিল চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, উয়েফা সুপার কাপ ও ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ।

স্পোর্টস স্ট্রিমিং সার্ভিস ডিএজেডএনকে দেওয়া গত শুক্রবারের সাক্ষাৎকারে নিজের কোচিং ক্যারিয়ারের নানা দিক নিয়ে কথা বলেন গুয়ার্দিওলা। সেখানেই এই স্প্যানিয়ার্ড জানালেন, তার কঠিনতম প্রতিপক্ষ ক্লপের লিভারপুল।

“ক্যারিয়ারে আমি যাদের মুখোমুখি হয়েছি তাদের মধ্যে কঠিনতম প্রতিপক্ষ হিসেবে অনেক ব্যবধানে এগিয়ে গত বছর ও এই মৌসুমের লিভারপুল।”

“সব রেকর্ডে তাদের আধিপত্য। ওদের আধিপত্য বিস্তারের সুযোগ দিলে, বন্দি করে ফেলবে আর সেখান থেকে বের হওয়া সম্ভব হবে না। ওদের চেপে ধরলেও ঠিকই জায়গা খুঁজে নেয় যা অন্য কেউ পারে না।”

দল হিসেবে লিভারপুলের শক্তির জায়গাগুলোও দেখিয়ে দিলেন গুয়ার্দিওলা।

“আক্রমণ শেষে তারা খুব দ্রুত ফিরে যায়। কৌশলের দিক দিয়ে তারা খুবই শক্তিশালী। মানসিকতার দিক থেকে ওদের খেলোয়াড়রা খুব দৃঢ়। তারা এমন প্রতিপক্ষ, যাদের হারানোর ছক কষতে আমাকে অনেক বেশি ভাবতে হয়েছিল।”

“যদি জিজ্ঞেস করেন, কোন দলকে বুঝে উঠতে এবং মোকাবেলা করতে সবচেয়ে অসুবিধা হয়েছে, দলটি লিভারপুল। আমি যখন ইংল্যান্ডে আসি, সেই সময় প্রথম কয়েক বছরে লিভারপুল এখনকার চেয়ে কম শক্তির দল ছিল। রিয়াল মাদ্রিদ অনেক বেশি শক্তিশালী দল ছিল। বর্তমানে, এই লিভারপুল আমার কোচিং ক্যারিয়ারে মুখোমুখি হওয়া সবচেয়ে কঠিন প্রতিপক্ষ।”

২০০৮ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত বার্সেলোনার কোচের দায়িত্বে থাকার সময়ে দুটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও তিনটি লা লিগাসহ অনেক শিরোপা জেতেন গুয়ার্দিওলা। এরপর জার্মানির বায়ার্ন মিউনিখ হয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দল সিটির হাল ধরেন তিনি। বায়ার্ন ও সিটির হয়ে ঘরোয়া অনেক শিরোপা জিতলেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা হয়নি তার।



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews