২০১৬ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে গণভোটের রায় যুক্তরাজ্যের ভেতরের ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, ওয়েলস এবং নর্দান আয়ারল্যান্ড এর বন্ধনে টানাপোড়েন সৃষ্টি করেছে।

স্কটল্যান্ড এবং উত্তর আয়ারল্যান্ড ভোট দিয়েছিল ইইউ’য়ে থাকার পক্ষে। আর ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ভোট দিয়েছিল এর বিপক্ষে। এরপর যুক্তরাজ্য ব্রেক্সিটের দিকে এগুতে থাকার সঙ্গে সঙ্গে স্কটল্যান্ড এবং উত্তর আয়ারল্যান্ডে স্বাধীনতা প্রশ্নে গণভোটের দাবি জোরদার হয়েছে।

স্কটল্যান্ড স্বাধীনতা প্রশ্নে গণভোট চায়। আর নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড রিপাবলিক অব আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে একত্রিত হতে চায়। ২০১৪ সালে স্বাধীনতা প্রশ্নে অনুষ্ঠিত গণভোটে কোনোরকমে কানের গোড় দিয়ে টিকে গিয়েছিল স্কটল্যান্ড।

সম্প্রতি ইপসোস মোরি পরিচালিত জনমত জরিপে দেখা গেছে, ৫০ শতাংশ ব্রিটিশ নাগরিকই মনে করেন আগামী ১০ বছরে যুক্তরাজ্য তার এই অস্তিত্ব আর টিকিয়ে রাখতে পারবে না। ২০১৪ সালের তুলনায় এখন ৪৩ শতাংশ বেশি নাগরিক এমন ধারণা পোষণ করেছে।

আর মাত্র ২৯ শতাংশ নাগরিক বলেছেন, তারা এক দশকে যুক্তরাজ্য একইরকম থাকবে বলে মনে করেন। অথচ ২০১৪ সালে এ হার ছিল ৪৫ শতাংশ।

২৫ থেকে ২৮ অক্টোবর সময়ে যুক্তরাজ্যজুড়ে ১৮ বছরের উর্ধ্বে ১,০০১ জনের সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে জরিপের ফল প্রকাশ করেছে ইপসোস মোরি।

এতে এও দেখা গেছে, ৪২ শতাংশ মানুষ বলেছেন, যুক্তরাজ্য আগামী ৫ বছর টিকে থাকতে পারবে আর ৪৪ শতাংশ মানুষ তা পারবে না বলেছেন।

“২০১৪ সালে স্কটল্যান্ডের স্বাধীনতা প্রশ্নে গণভোট আয়োজন নিয়ে বিতর্ক চলার সময় যুক্তরাজ্যের অখন্ডতা এবং এর ভবিষ্যতের ব্যাপারে ব্রিটিশ নাগরিকরা যতটা আশাবাদী ছিলেন এখন তার তুলনায় অনেক বেশি বিভক্ত,” বলেছেন স্কটল্যান্ডের বাজার গবেষণা কোম্পানি ইপসোস মোরির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমিলি গ্রে।



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews