মুক্ত লাইসেন্সের নানা বিষয় আর আয়োজনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো তিন দিনের ক্রিয়েটিভ কমন্স (সিসি) সম্মেলন। কানাডার টরন্টোতে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনে প্রথম বারের মতো ‘বাসেল খার্তাবিল ফ্রি কালচার ফেলোশিপ’ প্রদান করা হয়। এবার এ ফেলোশিপ পেয়েছেন ফিলিস্তিন-সিরিয়ান প্রকৌশলী মাজিদ আল-শিহাবী। তিনি বলেন, ‘আমি খুশি প্রথমবারের মতো এ ফেলোশিপ পেয়ে। আমার লক্ষ্য থাকবে ফেলোশিপকে কাজে লাগিয়ে উন্মুক্ত দুনিয়ার জন্য দারুণ কিছু কাজ করা।’

৫০ হাজার ডলার মূল্যমানের এ ফেলোশিপ এখন থেকে প্রতি বছর উন্মুক্ত লাইসেন্স ও নানা বিষয় নিয়ে কাজ করা একজনকে দেওয়া হবে। এ ফেলোশিপটি যৌথভাবে ক্রিয়েটিভ কমন্স (সিসি), উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন, মজিলা ফাউন্ডেশন, গ্লোবাল ভয়েসসহ বেশ কয়েকটি সংগঠনের পক্ষ থেকে দেওয়া হবে।

এবার ফেলোশিপের পাশাপাশি দ্য বাসেল খার্তাবিল মেমোরিয়াল ফান্ডের আওতায় ১০ হাজার ডলার মূল্যমানের ফেলোশিপ পেয়েছে মিশনের সিটিজেন জার্নালিজম নিয়ে কাজ করা গ্রুপ ‘দ্য মসিরিন কালেক্টিভস’, আরবের বিভিন্ন দেশের ঐতিহ্য ও তথ্য সংগ্রহকারী সংস্থা ‘সার্ক ডট ওআরজি’ এবং ‘দ্য আর ডিজিটাল এক্সপ্রেশন ফাউন্ডেশন’। প্রথমবারের মতো বাসেল খার্তাবিল ফেলোশিপ প্রদান অনুষ্ঠানে ক্রিয়েটিভ কমন্স (সিসি)-এর প্রধান নির্বাহী রায়ান মার্কলে বলেন, ‘মুক্ত লাইসেন্স ও উইকিপিডিয়া নিয়ে কাজ করা সিরিয়ান নাগরিক বাসেল খার্তাবিল ২০১৫ সালে সিরিয়ান সরকার দ্বারা অপহৃত হন এবং তাকে ফাঁসি দেওয়া হয়। সরকারের বিরুদ্ধে কাজ করা এবং উন্মুক্ত বিষয় নিয়ে কাজ করায় তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে পরে প্রমাণিত হয়। তার স্মৃতি ধরে রাখতেই এ ফেলোশিপ চালু করা হয়েছে।’ বাসেলের স্মৃতি ধরে রাখতে এমন একটি উদ্যোগ শুরু হয়েছে বলে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন তিনি।

সম্মেলনের শেষ দিনেও ছিল নানা আয়োজন। এতে আন্তর্জাতিক ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি (আইপি) আইন এবং আন্তর্জাতিক ইকোনোমিক রেগুলেশন বিষয়ে বিশেষ আলোচনা করেন হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের অধ্যাপক এবং ব্রেকমেন-ক্লেইন সেন্টারে উপ-পরিচালক ড. রুথ এল ওকেডিজ। আইপি আইনের নানা দিকের ব্যাখ্যা তুলে ধরেন তিনি। পরে এ বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেন অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় কপিরাইট পরিচালক ডেলিয়া ব্রাউন, কপিরাইট আইন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক মিশেল গেইস্ট, পর্তুগালের এটর্ন-এল-ল তেরেসা নোবরে। বক্তারা আইপি আইনের বিভিন্ন দিক ব্যাখ্যা করে এর ব্যবহারের নানা বিষয় তুলে ধরেন।

এছাড়া সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর প্রতিনিধিদের বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে বাংলাদেশ ছাড়াও নেপাল, কোরিয়া, ইন্দোনেশিয়া, জাপান, হংকং, তাইওয়ান, মঙ্গোলিয়া ও চীনের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। সভায় সিসি এশিয়ার সমন্বয়ক সোয়ুন পে অংশ নেন এবং বাংলাদেশের পক্ষে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন অধ্যাপক মোস্তাফা আজাদ কামাল এবং এ প্রতিবেদক যোগ দেন।

সভায় এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সিসি কাযর্ক্রমকে আরও বাড়ানো এবং আন্তঃসমন্বয়ের বিষয়টি কীভাবে আরও বাড়ানো যায় সে বিষয়ে আলোচনা করা হয়। এ বিষয়ে সোয়ুন পে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এশিয়ার নানা দেশ এখন সিসি নিয়ে উল্লেখযোগ্য নানা ধরনের কাজ করে যাচ্ছে। নিজেদের মধ্যে কীভাবে আরও আন্তঃসমন্বয় বাড়ানো যায় সে বিষয়ে আমরা আলোচনা করেছি। আশা করছি খুব শিগগিরই এ বিষয়ে আরও কাজ করা যাবে।’

সম্মেলনের সমাপনী পর্বে আগামী বছর পর্তুগালে সিসি সামিট ২০১৯’র ঘোষণা দেন সিসি প্রধান নির্বাহী।

আরও খবর:

উন্মুক্ত লাইসেন্স সহজ করতে ক্রিয়েটিভ কমন্স সার্টিফিকেশন

কানাডায় শুরু হলো ক্রিয়েটিভ কমন্স সামিট



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews