বৈদ্যুতিক যান ব্যবহারের প্রচারণা চালাতে এমন উদ্যোগ নিয়েছে জাপানের সফটব্যাংক মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানটি। এক বিবৃতিতে অ্যাপভিত্তিক গাড়ি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়, ২০২১ সালের মধ্যে বহরে ১০ লাখ বৈদ্যুতিক যান আনার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে বিভিন্ন প্রাদেশিক সরকার, যান নির্মাতা এবং ব্যাটারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করবে তারা-- খবর রয়টার্স-এর।

বৈদ্যুতিক যানের ব্যবহার প্রচার করতে বদ্ধপরিকর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি’র সরকার। গণপরিবহনে ট্যাক্সি দিয়ে এটি শুরু করছে তারা। আমদানিকৃত তেলের ওপর জাতীর নির্ভরশীলতা কমানো এবং পরিবেশ দূষণ মোকাবেলায় এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ২০৩০ সালের মধ্য সব নতুন যানই বিদ্যুৎচালিত করার উদ্যোগও নিয়েছে দেশটি।

ভারতের ১১০টি শহরে সেবা দিয়ে থাকে ওলা। আর প্রতিষ্ঠানের চালক সংখ্যা ১০ লাখের ওপরে। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে তিনটি শহরে তিন চাকার বৈদ্যুতিক গাড়ি নামানো হবে। তবে শহরগুলোর নাম বলা হয়নি।

তিন চাকার গাড়ির ব্যবহার দেখা গেছে অনেক আগে থেকেই, বিশেষ করে ছোট শহরগুলোতে। কিন্তু বৈদ্যুতিক সংস্করণের ব্যবহার শুরু হয়েছে দুই বছর আগে।

ঠিক কোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান তিন চাকার যানগুলো তৈরি করবে তা জানায়নি ওলা। আর যানগুলো প্রাতিষ্ঠানিকভাবে কেনা হবে নাকি চালকের মালিকানায় কেনা হবে তাও স্পষ্ট করে বলা হয়নি। তিন চাকার এই বৈদ্যুতিক যানগুলো কবে নাগাদ রাস্তায় নামবে সে প্রশ্নেরও জবাব পাওয়া যায়নি।

আগের বছর মে মাসে নাগপুরের পশ্চিমা শহরে বৈদ্যুতিক গাড়ির একটি পাইলট প্রকল্প চালু করে ওলা। কিন্তু চার্জিং স্টেশনে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা এবং চালনা খরচ বেশি হওয়ায় চালকরা এতে খুশি হতে পারেননি। গাড়ি ফেরত দেওয়ার কথাও জানিয়েছেন তারা।

সোমবার এক বিবৃতিতে ওলা জানায়, “নাগপুরের ইভি প্রকল্প ওলা-কে কার্যকরভাবে যান ব্যবস্থাপনা, ব্যাটারি এবং গাড়ি পরিচালনা করতে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে।” ব্যাটারি এবং চার্জিং ব্যবস্থা আরও ভালোভাবে কাজে লাগাতে তারা নতুন উপায় বের করতে থাকবে বলেও জানানো হয়।



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews