আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবউল আলম হানিফ বলেছেন, সাংবাদিকদের কল্যাণেই বিএনপি টিকে আছে। না-হলে তাদের কোনও অস্তিত্বই থাকতো না। বুধবার (১৬ মে) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে ঢাকাস্থ গোপালগঞ্জ সাংবাদিক সমিতি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এই মন্তব্য করেন।

হানিফ বলেন, ‘বিএনপি নামক এই দলটি এখন মিথ্যাবাদীর দলে পরিণত হয়ে গেছে। একদিকে দুর্নীতিবাজ সন্ত্রাসী, আর এখন হয়ে গেছে মিথ্যাবাদীর দল। এরা মিথ্যাচার করেই কিন্তু তাদের রাজনীতি টিকিয়ে রেখেছে। আর আমাদের সাংবাদিক বন্ধুদের কল্যাণেই কিন্তু বিএনপি টিকে আছে। না হলে তাদের কোনও অস্তিত্বই থাকতো না। আমার বিশ্বাস, সাংবাদিক বন্ধুরা যদি তাদের থেকে একবার মুখ ফিরিয়ে নিতো, তাহলে এই দলের অস্তিত্ব এখন খুঁজে পাওয়া মুশকিল হয়ে যেত।’

বিএনপি অনবরত মিথ্যাচার করে যাচ্ছে এমন অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘খুলনা নির্বাচনে নাকি তাদের ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে। সুনির্দিষ্টভাবে কোনও ঘটনা তারা দেখাতে পারেনি। আমাদের দেশে বিভিন্ন নির্বাচনে দেখেছেন— কোনও কেন্দ্রে যদি ছোটখাটো গোলযোগও হয়, তাহলে মিডিয়ায় তো চলে আসেই, এর বাইরে সোশ্যাল মিডিয়ায় চলে আসে। খুলনা সিটি করপোরেশনের কোনও জায়গায় অনিয়ম হচ্ছে, কারচুপি হচ্ছে, এমন কোনও ছবি কিন্তু আসে নাই। উন্নয়ন আর অগ্রগতির পথে দেশের জনগণ, এটা খুলনা সিটি নির্বাচনে প্রমাণ হয়ে গেছে। উৎসবের আমেজের মধ্য দিয়ে খুলনা সিটি নির্বাচন হয়েছে। কোথাও কোনও সংঘাত-বিরোধ দেখা দেয়নি। যে দুটি কেন্দ্রে সমস্যা দেখা দিয়েছে, নির্বাচন কমিশন সে দুটি সঙ্গে সঙ্গে বন্ধ করে দিয়েছে। খুলনা সিটি নির্বাচনে বিএনপি যে কারচুপির অভিযোগ করেছে, তার কোনও সুনির্দিষ্ট প্রমাণ দেখাতে পারেনি তারা।’

আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনা আবারও ক্ষমতায় আসবেন এমন আভাস জনগণ দিয়েছে দাবি করে হানিফ বলেন, ‘জনগণ গতকালকেই (মঙ্গলবার) রায় দিয়ে প্রমাণ করেছে, আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে। এদেশের জনগণ যেমন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদকে একটানা ২০ বছর ক্ষমতায় থেকে উন্নয়ন করতে দেখেছে, ঠিক তেমনি শেখ হাসিনাকেও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আরও  টানা ২০ বছর ক্ষমতায় দেখতে চায়। সেই কারণেই তারা বলছেন, শেখ হাসিনার সরকার বারবার দরকার।’

মালয়েশিয়ার নির্বাচন থেকে বিএনপিকে শিক্ষা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে হানিফ বলেন, ‘দেশের জনগণ আর দুর্নীতিবাজদের ক্ষমতায় দেখতে চায় না। দেশে শেখ হাসিনার পর আর কোনও আস্থাভাজন ব্যক্তি নাই।’ 

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ মামুন শেখের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তৃতা করেন— সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওছার, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি শাবান মাহমুদ, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শুকুর আলী শুভ, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আতিয়ার রহমান দীপু প্রমুখ।



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews