এলআরবি নামটি আর কেউ ব্যবহার করতে পারবে না। এলআরবির প্রধান প্রয়াত ব্যান্ড তারকা আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের সদস্যরা সম্প্রতি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর তা জানার পর এলআরবি নাম পরিবর্তন করেছেন ব্যান্ডের সদস্যরা। এবার ব্যান্ডটির নতুন নাম হয়েছে ‘বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি’। এই ব্যান্ডের অন্যতম সদস্য মাসুদ আজ সোমবার দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, ‘এলআরবির প্রাণপুরুষ আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা আর সম্মান রেখে তাঁর স্মৃতিকে অম্লান রাখতে, আমাদের সবার প্রিয় ব্যান্ডকে বাঁচিয়ে রাখতে এই উদ্যোগ নিয়েছি।’

মাসুদ দাবি করেন, ‘এলআরবির ব্যাপারটি নিয়ে আমরা বারবার বসের (আইয়ুব বাচ্চু) পরিবারের সঙ্গে বসতে চেয়েছি। ব্যান্ডের নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে চেয়েছি। কিন্তু তাঁরা কেউ বসতে চাননি। বসের কোনো অসম্মান হোক, তাঁকে নিয়ে কাঁদা ছোড়াছুড়ি হোক, তা আমরা চাইনি। বসকে সবাই যতটা ভালোবাসেন, আমরা চাই সবার মনের মধ্যে তিনি সেই ভালোবাসা নিয়েই বেঁচে থাকুন। আমরা বসকে এবং এলআরবিকে অনেক ভালোবাসি। বসের সম্মান রক্ষার্থে যেকোনো সিদ্ধান্ত নিতে আমরা কখনো পিছপা হইনি, হব না।’

‘বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি’ ব্যান্ডের সদস্যরাএরপর আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুর পর কেউ তাঁর পরিবারের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ করেনি। কোনো খোঁজখবর নেয়নি। আইয়ুব বাচ্চুর স্মৃতি আর তাঁর ব্যান্ডকে ধ্বংস করার জন্য একটি মহল চেষ্টা করছে।

এদিকে মাসুদ জানান, ব্যান্ডের নাম পরিবর্তন করা হলেও ‘বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি’ আইয়ুব বাচ্চু ও এলআরবির গাওয়া গান চর্চা করবে। বিভিন্ন কনসার্ট আর অনুষ্ঠানে তা পরিবেশন করবে। পাশাপাশি ধীরে ধীরে নিজেদের নতুন গানও তৈরি করবে।

৫ এপ্রিল এলআরবির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীর একটি রেস্তোরাঁয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে এলআরবির নতুন লাইনআপ ঘোষণা করা হয়। সেখানে কণ্ঠশিল্পী বালামকে এলআরবির মূল ভোকাল হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়। এলআরবির নতুন লাইনআপের সব সদস্য তখন উপস্থিত ছিলেন। সেই অনুষ্ঠানে বলা হয়, ‘আইয়ুব বাচ্চুর রিপ্লেসমেন্ট কখনোই সম্ভব নয়। আমরা আইয়ুব বাচ্চু আর এলআরবির গানগুলোকে বাঁচিয়ে রাখতে চাই। নতুন প্রজন্ম ও পরবর্তী প্রজন্মের কাছে গানগুলোকে আগের মতো পৌঁছে দেওয়ার জন্য আমরা বালামকে লাইনআপে ফ্রন্টম্যান হিসেবে গিটার আর ভয়েসে নিয়ে এসেছি।’

আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ব্যান্ডের লাইনআপ পরিবর্তন করার ব্যাপারে পরিবারের কারও সঙ্গে ব্যান্ডের সদস্যরা কোনো যোগাযোগ কিংবা আলোচনা করেনি। এই ঘটনার ঠিক ১০ দিন পর ব্যান্ডের নাম পরিবর্তন করেছেন সদস্যরা।

সবশেষে মাসুদ বলেন, ‘যেকেউ চলে যেতে পারেন। তাই বলে তাঁর জন্য অন্য সব কাজ থেমে যাবে? তা কখনো হয়েছে? বস কিন্তু কঠিন সময়েও আমাদের বলেছেন, দ্য শো মাস্ট গো অন। আর আমরা বলছি, দ্য লিগ্যাসি মাস্ট গো অন।’



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews