২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বিদেশ থেকে প্রেরিত রেমিট্যান্সের ওপর মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট আরোপিত হয়েছে মর্মে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত খবরকে সম্পূর্ণ মিথ্যা ও গুজব বলে জানিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। দেশের বৈধ রেমিটেন্স প্রবাহ বন্ধ করে হুন্ডির মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণের অপপ্রয়াস হিসেবে এ প্রচারণা চালানো হতে পারে বলে মনে করছে রাজস্ব প্রশাসন।

আজ বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এনবিআর এসব উল্লেখ করে বলেছে রেমিটেন্সের ওপর ভ্যাট আরোপের আইনগত সুযোগ নেই।

এনবিআর বলছে-মূল্য সংযোজন কর আরোপিত হয় পণ্য বা সেবা সরবরাহের ওপর। বাংলাদেশের প্রবাসীরা দেশের বাইরে নিজস্ব কঠোর শ্রমের বিনিময়ে যে সেবা দিয়ে থাকেন তার বিনিময়ে বৈদেশিক মুদ্রা আহরিত হয়। এ সম্পূর্ণ কার্যক্রম মূল্য সংযোজন কর আইন, ১৯৯১ এর ধারা ৩ এর উপ-ধারা ২(ক) মোতাবেক সেবা রপ্তানি হিসাবে বিবেচিত। সুতরাং এ রপ্তানি কার্যক্রম ভ্যাটের আওতা বহির্ভূত। অর্থাৎ রেমিটেন্স সীমা নির্বিশেষে এ খাতের উপর কোন ভ্যাট প্রযোজ্য নয়। তাই প্রবাসীরা বৈধ ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে যে কোন পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা বা রেমিটেন্স প্রেরণ করতে পারেন।

রাজস্ব প্রশাসন হুন্ডির মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা বা রেমিটেন্স প্রেরণ থেকে বিরত থাকার জন্য প্রবাসীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে।
হুন্ডি বা মানি লন্ডারিং প্রতিরোধের বিষয়ে এনবিআর সবসময় সতর্ক অবস্থানে রয়েছে উল্লেখ করে অবৈধ চ্যানেল বা হুন্ডির মাধ্যমে রেমিটেন্স প্রেরণ করা হলে তা জাতীয় অর্থনীতিতে ভূমিকা রাখতে পারে না।



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews