ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় একটি বাড়ির বসতঘরের মেঝে খুঁড়ে বস্তাবন্দি অবস্থায় জসিম উদ্দিন (২৫) নামে যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার উড়াহাটি পশ্চিমপাড়া সুলতান মিয়ার বাড়ি থেকে বসতঘরের মাটি খুঁড়ে লাশটি উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর থেকে নিহতের বাবা-মা পলাতক রয়েছে।

ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন ভালুকা মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই গ্রামের সুলতান মিয়ার মাদকাসক্ত ছেলে জসিম উদ্দিন নেশার টাকার জন্য প্রায়ই বাবা-মাসহ পরিবারের লোকজনকে নির্যাতন করে আসছিল। সোমবার রাতে নেশার টাকার জন্য তার মা সুফিয়া খাতুনকে মারধর করলে বাবা সুলতান মিয়ার সঙ্গে ঝগড়া হয়। এ সময় সুলতান মিয়া কুড়াল দিয়ে ছেলে জসিমকে আঘাত করলে সে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।

পরে স্বামী-স্ত্রী মিলে ঘরের মেঝে গর্ত করে জসিমের লাশ বস্তাবন্দি করে গর্তের ভেতর পুঁতে রাখে। বুধবার সন্ধ্যায় সুলতাল বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার সময় বড় ছেলে আমীরকে মোবাইল ফোনে জানিয়ে যায় সে জসিমকে মেরে ফেলেছে। আমীর ঘটনাটি প্রতিবেশীকে জানায়।

থানা পুলিশকে জানানোর পর বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘরের ভেতরে থাকার চৌকির নিচে নতুন মাটি লেপাপোছা অবস্থায় দেখতে পেয়ে সন্দেহ হয়। পরে মাটি খুঁড়ে গলায় বস্তাবন্দি অবস্থায় জসিমের লাশ উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

এক সন্তানের জনক জসিম এক অটোরিকশাচালক ছিলেন। তিনি প্রায়ই নেশা করে পরিবারের লোকদের নির্যাতন করতেন।

লাশ উদ্ধারকারী ভালুকা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম জানান, লাশের গায়ে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। বস্তাবন্দি অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করা হয়।



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews