ঢাকা: সদ্যসমাপ্ত রিহ্যাব ফেয়ার-২০১৯ এর পাঁচ দিনে প্রপার্টি বুকিং হয়েছে প্রায় ১৫০০ কোটি টাকার। আর পরবর্তী সময়ে প্রপার্টিতে আরও প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগের আশ্বাস পেয়েছে আবাসন খাতের প্রতিষ্ঠানগুলো।

রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টায় সমাপ্তি ঘোষণা করা হয় ১৮তম রিহ্যাব ফেয়ারের। মেলা শেষে বিনিয়োগ নিয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো ঘোষণা না দিলেও আয়োজক কমিটির সভাপতি এবং রিহ্যাব পরিচালক শাকিল কামাল চৌধুরীর সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি জানতে পেরেছে বাংলানিউজ।

শাকিল বলেন, এবারের মেলা আমাদের সব আয়োজনের চেয়ে সফল। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে এখন পর্যন্ত যে হিসাব পেয়েছি, সেই হিসাবে প্রায় ১৫০০ কোটি টাকার সমপরিমাণ মূল্যে আবাসন খাতে বিনিয়োগ পেয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলো। এছাড়া আরও দুই হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগের ব্যাপারে মেলায় আসা দর্শনার্থীরা আশ্বাস দিয়েছেন। আগামী কিছু দিনের মধ্যেই হয়তো প্রতিষ্ঠানগুলো এসব বিনিয়োগের বুকিং মানি পেয়ে যাবে। দু-এক দিনের মধ্যে পুরো হিসাব নিয়ে আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে জানাবো। তখন সঠিক অংকটা জানা যাবে।

ফ্ল্যাট ও জমি বুকিংয়ের পাশাপাশি হোটেল-রিসোর্ট মিলিয়ে এই বিনিয়োগ পাওয়া গেছে জানিয়ে রিহ্যাব পরিচালক বলেন, আমাদের মেলায় ৫০ টাকা মূল্যে সিঙ্গেল এন্ট্রি এবং ১০০ টাকা মূল্যে সর্বোচ্চ পাঁচ বার মাল্টিপল এন্ট্রির টিকেট ছিল। আমাদের এখন পর্যন্ত প্রায় ২৪ হাজার টিকিট বিক্রি হয়েছে। এর অর্থ এই প্রায় ২৪ হাজার মানুষ জমি, ফ্ল্যাট বা অন্যান্য প্রপার্টিতে বিনিয়োগের উদ্দেশ্য নিয়েই এসেছিলেন। কেউ হয়তো এখানে এসে বুকিং দিয়েছেন। আর কেউ হয়তো কথা বলেছেন; আগামীতে বিনিয়োগ করবেন। আর যারা করবেন না তাদের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে খুব কম হবে।  

এবারের মেলায় অন্যতম বিশেষ দিক ছিল প্রবাসীদের বিনিয়োগ। দেশীয় দর্শনার্থীদের পাশাপাশি বিদেশে প্রবাসী হিসেবে থাকা বাংলাদেশিদের মেলায় বিশেষ আগ্রহ নিয়ে আসতে দেখা যায়। মেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের স্টল ঘুরে জানা যায়, অন্যান্য বছরগুলোর তুলনায় এবারের মেলায় প্রবাসীদের বিনিয়োগ ছিল উল্লেখ করার মতো। আর দেশীয় বিনিয়োগকারীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি উপস্থিতি ছিল মধ্যবিত্ত শ্রেণীর। 

দর্শনার্থী এবং বিনিয়োগকারীদের এমন আগ্রহে সন্তুষ্ট মেলায় অংশগ্রহণকারীরাও। ‘অন স্পট’ বুকিংয়ের পাশাপশি গ্রাহকদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন ও বৃদ্ধিতে এই আয়োজন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বলে মনে করেন প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্তাব্যক্তিরা। 

মেলায় অংশ নেওয়া নোভা হোল্ডিংস লিমিটেডের পরিচালক জিনাত রেহানা বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের প্রপার্টিগুলো ঢাকার মিরপুর এবং বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায়। মিরপুরে বেশ কিছু উন্নয়নমূলক কাজ হচ্ছে। যে কারণে বিনিয়োগকারীদের প্রথম পছন্দে মিরপুর এখন শীর্ষে। সেই হিসাব থেকে এবং অন্যান্য বিষয় মিলিয়ে এবারের মেলায় আমরা বেশ ভালো এবং ইতিবাচক সাড়া পেয়েছি। দেশীয় ক্রেতাদের পাশাপাশি প্রবাসী বাংলাদেশিরাও উল্লেখযোগ্যহারে বিনিয়োগ করেছে। এটা এই খাতের ব্যবসায় বেশ ইতিবাচক একটা দিক। 

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র প্রাঙ্গণে গত ৬ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়েছিল পাঁচ দিনব্যাপী রিহ্যাব ফেয়ার-২০১৯। রোববার সন্ধ্যায় দর্শনার্থীদের টিকেটের কুপণ থেকে আয়োজিত র‌্যাফেল ড্র এর মধ্যে দিয়ে শেষ হয় দেশের আবাসন খাতের সর্ববৃহৎ এই আয়োজন। 

বাংলাদেশ সময়: ০৪০৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯

এসএইচএস/এইচএ/



Contact
reader@banginews.com

Bangi News app আপনাকে দিবে এক অভাবনীয় অভিজ্ঞতা যা আপনি কাগজের সংবাদপত্রে পাবেন না। আপনি শুধু খবর পড়বেন তাই নয়, আপনি পঞ্চ ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগও করবেন। বিশ্বাস না হলে আজই ডাউনলোড করুন। এটি সম্পূর্ণ ফ্রি।

Follow @banginews